আজ ৩১/০১/২০১৮ তারিখ দিনের শুরুতেই দেখে নিন আজকের টাকার রেট কত !!

আজ ৩১/০১/২০১৮ তারিখ দিনের শুরুতেই দেখে নিন আজকের টাকার রেট কত !!

একমাত্র আমাদের পেইজে প্রতিদিন টাকার দাম হালনাগাদ করে থাকে !!

MYR (মালয়েশিয়ান রিংগিত)  = 21.32 ৳

SAR (সৌদি রিয়াল)  = 22.18 ৳

Loading...

SGD (সিঙ্গাপুর ডলার)  = 63.38 ৳

AED (দুবাই দেরহাম)  = 22.65 ৳

KWD (কুয়েতি দিনার)  = 277.47 ৳

USD (ইউএস ডলার)  = 83.18 ৳

OMR (ওমানি রিয়াল)  = = 216.35 ৳

QAR (কাতারি রিয়াল)  = 22.85 ৳

BHD (বাহরাইন দিনার) = 220.36 ৳

INR (ইন্ডিয়া রূপি) = 1.26 ৳

EUR (ইউরো)  = 103.15 ৳

MVR (মালদ্বীপিয়ান রুপিয়া)  = 5.38 ৳

IQD (ইরাকি দিনার)  =  0.069 ৳

ZAR (সাউথ আফ্রিকান রেন্ড)  = 6.93 ৳

GBP (ব্রিটিশ পাউনড)  = 117.63 ৳

যে কোন সময় টাকার রেট উঠা নামা করতে পারে

‘সৌদি থেকে রেমিট্যান্স আসার হার নিম্নমুখী’

সৌদি আরব থেকে প্রতিবছর গড়ে ২ হাজার ৯২২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স আসছে। তবে বিগত ২ অর্থবছরে এই রেমিট্যান্স আসার হার নিম্নমুখী হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩০ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তর পর্বে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসির দেয়া তথ্য বিশ্লেষণে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

সংসদে বাংলাদেশ ব্যাংকের বরাত দিয়ে মন্ত্রী জানান, সৌদি থেকে ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ৩ হাজার ১১৮ দশমিক ৮৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, ২০১৪-১৫ অর্থবছরে ৩ হাজার ৩৪৫ দশমিক ২৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, ২০১৫-১৬ অর্থবছরে ২ হাজার ৯৫৫ দশমিক ৫৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ২ হাজার ৬৬৭ দশমিক ২২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার এবং চলতি অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে ১ হাজার ২০২ দশমিক ৭৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার রেমিট্যান্স এসেছে।

বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী জানান, জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর ছাড়পত্র নিয়ে সৌদি আরবেই সর্বাধিক ৩৩ লাখ ৯৩ হাজার ২৭১ কর্মি গিয়েছে। এর মধ্যে গত বছর গিয়েছে ৫ লাখ ৫১ হাজার ৩০৮ জন। এছাড়া বর্তমানে বিশ্বের ১৬৫ দেশে মোট ১ কোটি ১৪ লাখ ৬৪ হাজার ৯৪৩ জন বাংলাদেশি কর্মী রয়েছে।

মন্ত্রী আরো জানান, চলতি অর্থবছরের প্রথম ৬ মাসে তারা দেশে ৬ দশমিক ৯৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলার পাঠিয়েছে। গত অর্থবছরের একই সময়ে তাদের পাঠানো রেমিট্যান্সের পরিমাণ ছিলো ৫ দশমিক ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

বর্তমান সরকারের নানামুখী উদ্যোগের কারণে ২০১৭ সালে রেকর্ড সংখ্যক ১০ লাখ ৮ হাজার ৫২৫ জন কর্মী বিদেশে গিয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘অদক্ষ কর্মীর তুলনায় দক্ষ কর্মীর অভিবাসন ব্যয় কম, চাহিদা ও বেতন বেশী। তাই বর্তমান সরকার দক্ষ কর্মি তৈরির ওপর সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করেছে। অধিক হারে জনশক্তি তৈরির লক্ষ্যে সারা দেশের প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের সংখ্যা ইতিমধ্যে ৩৮ থেকে বাড়িয়ে ৭০টি করা হয়েছে।’

সংরক্ষিত আসনের এক নারী সংসদ সদস্যের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, প্রতরণার দায়ে বিগত ৮ বছরে ১৩১টি রিক্রুটিং এজেন্সির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিয়েছে সরকার। এর মধ্যে ২০১০ সালে ২৬, ২০১১ সালে ২২, ২০১২ সালে ১৬, ২০১৩ সালে ১৭, ২০১৪ সালে ১৩, ২০১৫ সালে ১২, ২০১৬ সালে ১১ এবং ২০১৭ সালে ১৪টি এজেন্সি বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এগুলোর লাইসেন্স বাতিল বা স্থগিত করা হয়েছে। একইসঙ্গে বহু এজেন্সির জামানতও বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

About চীপ ইডিটর

View all posts by চীপ ইডিটর →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.