বেলজিয়ামের ‘আফ্রিকান লুকাকু’ শক্তি বধে ফ্রান্সের ‘আফ্রিকান উমতিতি’ শক্তিই কাজে লেগে গেল!

স্পোর্টস্ আপডেট ডেস্ক :: রাশিয়ার মাটিতে ফরাসি বিপ্লব অব্যাহত৷ বেলজিয়ামকে হারিয়ে ১২ বছর পর বিশ্বকাপ ফাইনালে চলে গেল ফ্রান্স৷ ‘লেজ ব্লুজ’দের হয়ে ম্যাচের একমাত্র গোল উমতিতির৷ দ্বিতীয়ার্ধে ৫১ মিনিটে গ্রিজমানের কর্ণার থেকে ডিফেন্ডার উমতিতি’র হেডে এগিয়ে যায় ফ্রান্স৷ সেই গোলে ভর করেই ১-০ সেমিফাইনাল জিতল দেশঁম’র ছেলেরা৷

স্ট্রাইকার জিরুদ বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া না করলে ও আরও বড় ব্যবধানে জিততে পারত ফরাসিরা৷ দুই অর্ধ জুড়ে একাধিক সুযোগ তৈরি করলেও গোলমুখ খুলতে না পারায় সেন্ট পিটার্সবার্গেই স্বপ্ন শেষ বেলজিয়ামের৷ গোটা বিশ্বকাপ দুর্দান্ত খেলেও সেমিফাইনালে ছিটকে গিয়ে ট্র্যাজিক নায়ক হয়ে রইল বেলজিয়াম ফুটবলের গোল্ডেন জেনারেশন৷ প্রথমার্ধে বেলজিয়ামের একটি নিশ্চিত গোল আটকে দেন ফরাসি গোলকিপার হুগো লরিস৷ ফাইনালে দ্বিতীয় সেমিফাইনালের ইংল্যান্ড-ক্রোয়েশিয়া ম্যাচের জয়ীর বিরুদ্ধে খেলবে ফ্রান্স৷

দেশঁম’র কোচিংয়ে এই নিয়ে টানা দুটি মেগা টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলতে চলেছে ফরাসিরা৷ ২০১৬ ইউরো ফাইনালের দু’বছর পর বিশ্বকাপ ফাইনালেও টিকিট পাকা করল এমবাপে-গ্রিজমানরা৷ বিশ্বকাপের ইতিহাসে এই নিয়ে তৃতীয়বার ফাইনালে পৌঁছাল ফ্রান্স৷ ১৯৯৮ ঘরের মাঠে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ২০০৬-র জার্মানি বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলেছিল ফরাসিরা৷ সেবার অবশ্য ইতালির কাছে হেরে রানার্স হয় জিদানরা৷

অন্যদিকে প্রথমবারের জন্য ফাইনাল খেলার সুযোগ হাতছাড়া করল হ্যাজার্ড-লুকাকুরা৷ বেলজিয়াম শিবিরে ফিরল ৩২ বছর আগের স্মৃতি৷ ১৯৮৬ মেক্সিকো বিশ্বকাপের মতো এবারও সেমফাইনালের গাঁট টপকাতে ব্যর্থ রেড ডেভিলসরা৷ ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে সেবার মারাদোনার আর্জেন্টিনার কাছে জোড়া গোলে হেরেছিল বেলজিয়াম৷ এবার হ্যাজার্ডদের স্বপ্নভঙ্গ করলেন উমতিতি৷

Loading...

বল দখলের লড়াই ফ্রান্সের (৩৬%) চেয়ে বেলজিয়াম (৬৪%) এগিয়ে থাকলেও সেমিফাইনালে ফরাসি রক্ষণের সামনে সমস্যায় পড়ে হ্যাজার্ড, লুকাকুরা৷ দুই অর্ধ মিলিয়ে ৯টি শটের মধ্যে মাত্র তিনবার তেকাঠিতে বল রাখতে পেরেছে রেড ডেভিলসরা৷ ব্রাজিল ম্যাচে রেড ডেভিলসদের গতি নজর কেড়েছিল৷ এদিন অবশ্য ফরাসি ডিফেন্সের সামনে নিজেদেরকে মেলে ধরতে পারলেন না লুকাকুরা৷ বরং, তারাই গতকালের ম্যাচে এমবাপেদের সাথে দৌড়াতে না পেরে জার্সি টেনে গতি আটকানোর অপচেষ্টা করছিলেন। ডি-ব্রুইনি,ফেলানিরা কয়েকটি হাফ চান্স পেলেও লক্ষ্যপূরণে ব্যর্থ হন৷ মূলত, আফ্রিকান লুকাকু শক্তি বধে আফ্রিকান পগবা, উমতিতি শক্তিই কাজে লেগে যায় ফরাসী বিগ্রেডে।

আঁটেসাঁটে রক্ষণের পাশাপাশি আক্রমণে শক্তি বাড়িয়ে বেলজিয়াম বক্সে গোলের জন্য ১৯বার চেষ্টা চালায় গ্রিজমান-এমবাপেরা৷ ধারালো আক্রমণের ফল গ্রিজমানের কর্ণার থেকে উমতিতি’র ৫১ মিনিটে হেড৷ দেশঁম’র পাখির চোখ এবার মস্কোর লুজকিনির ফাইনাল৷ শেষবার ২০১৬-র ইউরো মঞ্চে ফাইনালে উঠেও পর্তুগালের কাছে হারতে হয়েছিল৷ ক্যাপ্টেন হিসেবে বিশ্বকাপ জয়ের পর কোচ হিসেবে বিশ্বকাপ জিতে সেই ক্ষতে প্রলেপ লাগাতে চান দেশঁম৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.